ঘরেও ফুল থাকুক সতেজ

ঘরেও ফুল থাকুক সতেজ

১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি):  প্রকৃতির এক অনিন্দ সুন্দর জিনিস ফুল। ফুলের সৌরভ আর রুপ মানুষকে প্রতিনিয়ত মুগ্ধ করে আসছে। তাজা ফুল ঘরে রাখলে ঘরের চেহারাই যেন বদলে যায়।

তাই তো যুগ যুগ ধরে শৌখিন মানুষরা তাদের অন্দরসজ্জায় ব্যবহার হয়ে আসছে তাজা ফুল। অনেকে আবার প্রিয়জনের দেওয়া ফুল সাজিয়ে রাখতে চায় বেশ কিছুদিন। কিন্তু তাজা ফুল খুব কম সময়ই থাকে সতেজ ও সুন্দর।

তবে কিছু উপায় অবলম্বন করলে ফুল কিছুদিন থাকবে সুন্দর ও তরতাজা। ঘরের সৌন্দর্য ও থাকবে অটুট।

*  ফুলদানির পানি বদল করুন প্রতিদিন।

* গাছ থেকে ফুল তোলার পর বোঁটা ফুটন্ত পানিতে আধা মিনিট ডুবিয়ে রাখুন। তারপর ঠান্ডা পানিতে রাখুন।

* পানিতে চিনির মিশ্রণ ঘটান। এতে বেশিদিন টাটকা থাকবে।

* ফুলদানিতে তামার একটি পয়সা রাখুন।

* ফুলের ওপরের অংশ খোলা রেখে স্বচ্ছ পলিথিন দ্বারা মুড়িয়ে রাখতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে নিচের অংশ যেন একটু খোলা থাকে যাতে প্রস্বেদন ও শ্বসন ঠিকমতো হয়।

* পরাগায়ণ বন্ধ করতে পারলে ফুল বেশিদিন তাজা থাকে। তাই ফুল ফোটার সঙ্গে সঙ্গে পুংকেশর সরিয়ে ফেলুন।

* ফুল প্লাস্টিকের বোতলে না রেখে কাঁচের বোতলে রাখুন। ফুল ও ভালো থাকবে, দেখতেও সুন্দর লাগবে।

লিখেছেন: আফরোজা জাহান

Previous ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিধসে ১২ জনের মৃত্যু
Next বিরাট-রেকর্ড !

About author

You might also like

রাজনীতি ০ Comments

The Homesman rides, The Expendables assemble

Nam in pharetra nulla. Cras aliquet feugiat sapien a dictum. Sed ullamcorper, erat eu cursus sollicitudin, lorem orci condimentum ante, non tincidunt velit dolor eget lacus. Ut dolor ex, gravida

লাইফস্টাইল ০ Comments

চোখের সৌন্দর্য বাড়াবেন যেভাবে

১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): মুখমণ্ডলের শ্রীবৃদ্ধিতে চোখের গুরুত্ব সন্দেহাতীত। চোখের নিচে কালো দাগ পড়লে বা ফুলে গেলে সেই সৌন্দর্যের হানি ঘটে। প্রচলিত ধারণা মতে কম ঘুম হওয়া বা অধিক চা

লাইফস্টাইল ০ Comments

মূর্ছা গেলে তাৎক্ষণিকভাবে করণীয় কাজ

১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): মূর্ছা যাওয়ার ঘটনা হরহামেশাই ঘটে। এই মূর্ছা যাওয়ার কারণও অনেক। সাধারণভাবে কারণ অনুযায়ীই চিকিৎসা করা উচিত। তার পরও তাৎক্ষণিকভাবে কী করা উচিত তা জানা থাকলে সমস্যা

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply