সুপ্রিম কোর্টের সামনে কোরানের প্রতিকৃতি চাইলেন এমপি ইয়াহইয়া

সুপ্রিম কোর্টের সামনে কোরানের প্রতিকৃতি চাইলেন এমপি ইয়াহইয়া

ঢাকা ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): ন্যায়বিচারের স্মারক ভাস্কর্য হিসেবে পরিচিত গ্রীক দেবি থেমিসের ভাস্কর্যকে ‘মূর্তি’ আখ্যা দিয়ে সুপ্রিম কোর্টের সামনে থেকে তা সরিয়ে পবিত্র আল কোরানের প্রতিকৃতি বা সুরা যিলযালের ম্যুরাল স্থাপনের দাবি জানিয়েছেন সিলেট-৩ আসনের জাতীয় পার্টি দলীয় সংসদ সদস্য ইয়াহইয়া চৌধুরী।

ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে সাংসদ ইয়াহইয়া চৌধুরী লিখেছেন, সুপ্রিমকোর্টের সামনে গ্রীক মূর্তি স্থাপন এদেশের সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক এমনকি রাষ্ট্রধর্ম ইসলামের সাথেও সাংঘর্ষিক। এটা সংবিধানের ১২ এবং ২৩ অনুচ্ছেদের সম্পূর্ণ বিরোধী।

তিনি এ ভাস্কর্যকে মূর্তি আখ্যা দিয়ে এটা সরকারের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র আখ্যা দিয়ে আরও লিখেন, যদি কোন ধর্মীয় স্থাপনা বা এধরনের কোন কিছুর মাধ্যমে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার সুযোগ থাকে তবে পবিত্র আল কোরানের প্রতিকৃতি অথবা সূরা যিলযালের এই দুটি আয়াতের ম্যুরাল স্থাপন করা হউক।

ইয়াহইয়া চৌধুরী ফেসবুকে লেখেন-

সুপ্রিম কোর্টের সামনে গ্রীক মূর্তি স্থাপন বাংলাদেশের কোন ধর্মের সংস্কৃতি নয় এমনকি বাঙ্গালী সংস্কৃতিও নয় বরং এটা গ্রীকদের সংস্কৃতি ইউরোপীয় সংস্কৃতি।

সুপ্রিমকোর্টের সামনে গ্রীক মূর্তি স্থাপন এদেশের সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক এমনকি রাষ্ট্রধর্ম ইসলামের সাথেও সাংঘর্ষিক। এটা সংবিধানের ১২ এবং ২৩ অনুচ্ছেদের সম্পূর্ণ বিরোধী।

১৯৪৮ সালে সুপ্রিম কোর্ট প্রতিষ্ঠার পর থেকে যখন কোন মূর্তি ছিল না। তখন কি সুপ্রিম কোর্টে ন্যায় বিচার হয়নি? বাংলাদেশের কোন সমাজেই গ্রীক দেবীর মূর্তি স্থাপন সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। মূর্তি ন্যায় বিচারের প্রতীক গ্রীকদের ধর্মে বা অন্য কোন ধর্মে হতে পারে কিন্তু মুসলমানদের ধর্মে নয়। এদেশ শতকরা ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশ এবং রাষ্ট্র ধর্ম ইসলাম। সেখানে ৯২ ভাগ মুসলমানদের উপর অন্য ধর্ম চাপিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা চরম ধৃষ্টতা। তাহলে সর্বোচ্চ বিচারালয়ে মূর্তি স্থাপনের খাহেশ কাদের স্বার্থে।?!!

এটা সরকারের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র। সরকারের বিরোধী আন্দোলনের সুযোগ করে দিতেই এ ষড়যন্ত্র। অবিলম্বে এটা অপসারণ করতে হবে।

আর যদি কোন ধর্মীয় স্থাপনা বা এধরনের কোন কিছুর মাধ্যমে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার সুযোগ থাকে তবে পবিত্র আল কোরানের প্রতিকৃতি অথবা সূরা যিলযালের এই দুটি আয়াতের ম্যুরাল স্থাপন করা হউক।
‎{فَمَنْ يَعْمَلْ مِثْقَالَ ذَرَّةٍ خَيْرًا يَرَهُ (7) وَمَنْ يَعْمَلْ مِثْقَالَ ذَرَّةٍ شَرًّا يَرَهُ}
(অর্থাৎ কেউ বিন্দু পরিমাণ সৎকর্ম করলে বিচার দিবসে তার জন্য যেমন পুরস্কৃত করা হবে ঠিক তেমনি কেউ বিন্দু পরিমাণ অসৎকর্ম করলে তারও জবাবদিহি করতে হবে।)

অতএব, আমাদের আদালতে কর্মরত মাননীয় বিচারপতি, আইনজীবী ও বিচারপ্রার্থিরা এই আয়াতের মর্মার্থ উপলব্ধি করে বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনা করেন নিঃসন্দেহে ন্যায়বিচার সুপ্রতিষ্ঠিত হবে।

Share Button
Previous ৮ মিনিটে ৪ গোল বার্সার
Next বিশ্ব ব্যাংককে মাফ চাইতে হবে প্রধানমন্ত্রীর কাছে: আইনমন্ত্রী

You might also like

ফেসবুক থেকে

ফারুকীর পোস্টে মুন্নী সাহার বিতর্কিত মন্তব্য: ফেসবুকে তোলপাড়

ঢাকা ১৭ আগস্ট ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): দেশে বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ। সচেতন মানুষ খোঁজ খবর নিচ্ছেন বন্যা কবলিত মানুষের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে। কিন্তু ঠিক সেই সময়ই মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর বন্যা পরিস্থিতি সম্পর্কে দেওয়া

ফেসবুক থেকে

শুধু আজান শুনতেই মসজিদের পাশে বাড়ি কেনেন বাবা: দেবাশীষ

ঢাকা ১৯ এপ্রিল ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): শুধু আজান শোনার জন্যই মসজিদের পাশে বাড়ি কিনেছিলেন বাংলাদেশের প্রথ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক দীলিপ বিশ্বাস। এ তথ্য জানিয়েছেন বিখ্যাত ওই নির্মাতার ছেলে দেবাশীষ বিশ্বাস। দেবাশীষ নিজেও

ফেসবুক থেকে

ফেসবুক ও বর্তমান সামাজিক ভাইরাস

ঢাকা ১৭ জানুয়ারি ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): সাফিয়া খন্দকার রেখা : ২০০৪ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি Mark Zuckerberg আবিষ্কার করেছিলেন ফেসবুক।। প্রতিটি সৃষ্টির দুটি দিক রয়েছে- Negative ও posative. কে কোন দিকটি গ্রহণ করবে

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply