দেশে প্রথম জিরা চাষ গাংনীতে

দেশে প্রথম জিরা চাষ গাংনীতে

হারুন-অর-রশিদ রবি, গাংনী (মেহেরপুর) ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো মেহেরপুরের গাংনী উপজেলায় বাণিজ্যিক ভিত্তিতে শুরু হয়েছে মসলাজাতীয় ফসল জিরা চাষ। উপজেলার সাহারবাটি ও বানিয়াপুকুরসহ বিভিন্ন এলাকায় ৩ একর জমিতে জিরার চাষ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে প্রচুর পরিমাণ ফুল আর ফলে ছেয়ে গেছে জিরাগাছগুলো। তাই ব্যাপক সফলতা পাওয়ার প্রত্যাশায় দিন কাটছে কৃষক পরিবারের।
সাহারবাটি গ্রামের প্রভাষক গোলাম কিবরিয়া ৩৩ শতক ও বানিয়াপুকুর গ্রামের চাষি আব্দুল্লাহ ১ একর জমিতে প্রথমবারের মতো বাণিজ্যিক ভিত্তিতে জিরা চাষ শুরু করেছেন। তাদের এই জিরাগাছগুলো এখন ফুলে ফুলে ছেয়ে গেছে। পাশাপাশি দানা বাঁধতেও শুরু করেছে জিরা।
জিরাচাষি আব্দুল্লাহ ও প্রভাষক গোলাম কিবরিয়া জানান, প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ জিরাক্ষেত দেখতে আসছেন। বাড়ি থেকে শুরু করে মাঠে, হাটবাজারে যেখানে যাচ্ছি সেখানেই মানুষ চাচ্ছেন জিরার বীজ। অনেকে অগ্রিম টাকাও দিচ্ছেন।
আব্দুল্লাহ বলেন, ১ একর জমির জন্য ৯ হাজার টাকা দিয়ে ৯০০ গ্রাম বীজ কিনে এনেছিলেন তিনি। তার ওই জমিতে ১০ মণ জিরা হবে বলে তিনি আশা করছেন। প্রতি ১০০ গ্রাম বীজ এক হাজার টাকা দরে বিক্রি হবে বলে তিনি মনে করেন। বীজ হিসেবে জিরা বিক্রি করতে পারলে তাতে মুনাফার পরিমাণ বেশি হবে। তিনি তার এক একর জমির উৎপাদিত জিরা বিক্রি করে কমপক্ষে ২০ লাখ টাকা পাওয়ার আশা করছেন। জমিতে চাষ, সেচ, সার ও বিষ প্রয়োগে তার এ পর্যন্ত খরচ হয়েছে ৬০ হাজার টাকার মতো।
গোলাম কিবরিয়া জানান, জিরাক্ষেতে পরিমাণমতো পটাশ, টিএসপি ও জিপসাম ছিটিয়ে কার্তিক মাসের শেষ সপ্তাহে জিরার বীজ বপন করেন তারা। গাছ বড় হলে ইউরিয়া সার ও ভিটামিন ওষুধ এবং কয়েকবার সেচ দিয়েছি। ফাল্গুন মাসের প্রথমে গাছে ফুল আসে। এখন ফুল থেকে জিরার দানা বাঁধতে শুরু করেছে। চৈত্র মাসের শুরুতে পরিপক্ব দানার জিরা ঘরে উঠবে। তিনি ধারণা করছেন, এই জিরার মান ইরানি জিরার মতোই উন্নত হবে।
গাংনী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রইচ উদ্দীন বলেন, প্রথমবারের মতো গাংনী উপজেলায় সাহারবাটি ও বানিয়াপুকুরসহ বিভিন্ন মাঠে ৩ একর জমিতে জিরার চাষ হয়েছে। জিরা যেহেতু একটি অর্থকরী ফসল, সে বিবেচনায় এ বছর সফল ফলন হলে পরবর্তীকালে গোটা জেলায় এ চাষ সম্প্রসারণ করা সম্ভব হবে।
মেহেরপুর জেলা কৃষি কর্মকর্তা এস এম মুস্তাফিজুর রহমান জানান, আমাদের দেশে জিরা চাষে প্রধান বাধা কুয়াশা। শীতকালে কুয়াশা পড়লে জিরা চাষ সম্ভব নয়। জিরা চাষে প্রয়োজন শুষ্ক আবহাওয়া, ঝিরঝিরে বাতাস ও সূর্যের আলো। তবে মেহেরপুর জেলা জিরা চাষের উপযোগী।

Share Button
Previous ভাষাকে বিকৃত করবেন না : প্রধানমন্ত্রী
Next তারেক-মিশুক নিহতের মামলা: চালকের যাবজ্জীবন

About author

You might also like

লাইফস্টাইল ০ Comments

How I learned to stop worrying and smell the bluebells

Nam in pharetra nulla. Cras aliquet feugiat sapien a dictum. Sed ullamcorper, erat eu cursus sollicitudin, lorem orci condimentum ante, non tincidunt velit dolor eget lacus. Ut dolor ex, gravida

রাজনীতি ০ Comments

The Homesman rides, The Expendables assemble

Nam in pharetra nulla. Cras aliquet feugiat sapien a dictum. Sed ullamcorper, erat eu cursus sollicitudin, lorem orci condimentum ante, non tincidunt velit dolor eget lacus. Ut dolor ex, gravida

ফিচার ০ Comments

চুল রপ্তানি

শেখ জালাল উদ্দিন, যশোর২৩ জানুয়ারি ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): মহিলাদের মাথার চুল এখন আর ফেলে দেওয়ার জিনিস নয়। প্রতি কেজি চুল বিক্রি হচ্ছে চার হাজার টাকা। এ সব চুল প্রক্রিয়াজাত করে চীন

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply