‘পরমাণু হামলা করতে প্রস্তুত’ উত্তর কোরিয়া

‘পরমাণু হামলা করতে প্রস্তুত’ উত্তর কোরিয়া

১৫ এপ্রিল ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): উত্তর কোরিয়া যুক্তরাষ্ট্রকে এই বলে  হুঁশিয়ার করে দিয়েছে যে, যদি দেশটি ‘উস্কানিমূলক’ তৎপরতা বন্ধ না করে তা হলে তারা ‘পরমাণু হামলা করতে প্রস্তুত’।

শনিবার বিবিসি জানিয়েছে, উত্তর কোরিয়া থেকে এই হুমকি দেওয়া হলো যখন দেশটি তাদের প্রতিষ্ঠাতা কিম ইল সাংয়ের ১০৫তম জন্মবার্ষিকী পালন করছে।

উত্তর কোরিয়ার প্রতিষ্ঠাতা কিম ইল সাংয়ের ১০৫তম জন্মবার্ষিকী ১৫ এপ্রিল। দিনটিকে তারা ‘ডে অব দ্য সান’ হিসেবে পালন করে। এ উপলক্ষে আজ রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ে সামরিক প্যারেডের আয়োজন করা হয়। প্যারেড পরিদর্শনকালে অনেক উৎফুল্ল দেখা গেছে দেশটির নেতা কিম জং উনকে ।

আজ এই দিনটি উপলেক্ষে উত্তর কোরিয়া নতুন অস্ত্রের পরীক্ষা চালাতে পারে। কিন্তু নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে উত্তর কোরিয়া নতুন অস্ত্রের পরীক্ষা চালালে তার জবাব যুক্তরাষ্ট্র সামরিকভাবে দেবে কি না তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

উত্তর কোরিয়ার সামরিক কর্মকর্তা চো রিয়ং-হায়ে বলেন, ‘সর্বাত্মক যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি রয়েছে আমাদের।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমরা যে কোনো পরমাণু হামলার বিরুদ্ধে আমাদের নিজস্ব পদ্ধতিতে পাল্টা পরমাণু হামলা করতে প্রস্তুত।’

রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা কেসিএনএ বলেছে, কোরিয়ান (উত্তর) পিপলস আর্মির জেনারেল স্টাফের এক মুখপাত্র বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার প্রতি রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সামরিক ক্ষেত্রে বিদ্বেষমূলক নীতি অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্র যে দস্যুতামূলক পদক্ষেপ নিয়েছে সেসবের পাল্টা ও সমুচিত জবাব দেবে উত্তর কোরীয় সেনাবাহিনী ও জনগণ।

উত্তর কোরিয়ার প্রতিষ্ঠাতা কিম ইল সাংয়ের জন্মদিন উপলক্ষে পিয়ংইয়ংয়ে প্যারেডে প্রদর্শিত ক্ষেপণাস্ত্র
কেসিএনএ বলেছে, ‘ট্রাম্প প্রশাসনের গুরুতর ‘সামরিক হিস্টিরিয়া’ বিপজ্জনক পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। ‘যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনীকে পাল্টা আঘাতের মাধ্যমে এমন চরম ও নির্দয় জবাব দেওয়া হবে যে তারা বাঁচারই সুযোগ পাবে না।’

সম্প্রতি সিরিয়ায় বিষাক্ত গ্যাস ব্যবহার করে চালানো এক হামলার প্রতিক্রিয়ায় দেশটির একটি বিমান ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এরপর থেকে উত্তর কোরিয়ার বিষয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পরিকল্পনা নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্র হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, উত্তর কোরিয়া যদি তাদের সিদ্ধান্ত থেকে না ফিরে আসে, তবে সমুচিত জবাব দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে চীন যদি সহযোগিতা করলে ভাল। তা না হলে যুক্তরাষ্ট্র একাই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবে বলে হুঁশিয়ারি দেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ইতোমধ্যে কোরীয় উপদ্বীপের পথে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের বিমানবাহী রণতরী।

এ প্রসঙ্গে শুক্রবার চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, উত্তর কোরিয়াকে ঘিরে যে উত্তেজনা চলছে তাতে যে কোনো সংঘাতের সৃষ্টি হতে পারে। তিনি আরো বলেন, সম্ভাব্য এ যুদ্ধে কোনো পক্ষই জয়ী হবে না এবং যারা এ সংঘর্ষকে উস্কে দিচ্ছে তাদের চড়া মূল্য দিতে হবে।

Share Button
Previous ১৫ কর্মদিবসে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই: মোজাম্মেল হক
Next মঙ্গল শোভাযাত্রা: সম্মিলিত উলামা মাশায়েখ পরিষদের প্রতিবাদ

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply