মঙ্গল শোভাযাত্রা: সম্মিলিত উলামা মাশায়েখ পরিষদের প্রতিবাদ

মঙ্গল শোভাযাত্রা: সম্মিলিত উলামা মাশায়েখ পরিষদের প্রতিবাদ

ঢাকা ১৫ এপ্রিল ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): মঙ্গল শোভাযাত্রা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে সম্মিলিত ওলামা মাশায়েখ পরিষদ। গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনটির পক্ষ থেকে এ প্রতিবাদ জানানো হয়। বিবৃতিতে প্রায় শতাধিক ইসলামিক ব্যক্তিত্ব সই করেছেন।
বর্ষবরণের অনুষ্ঠান নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে বলে গত বৃহস্পতিবার দেশবাসীকে সর্তক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘মঙ্গল শোভাযাত্রা বাঙালির সংস্কৃতিরই অংশ। ধর্মের সঙ্গে এর কোনও সম্পর্ক নেই। এখানে ধর্মকে টেনে আনার কোনও যৌক্তিকতা নেই। এটাকে নিয়ে অনেকে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করছেন। এ বিষয়ে দেশবাসীকে সতর্ক থাকতে হবে।’
প্রধানমন্ত্রী যে বক্তব্য দিয়েছেন তা পবিত্র ইসলাম, ইসলামী মূল্যবোধ ও সভ্যতা-সংস্কৃতির সাথে সম্পূর্ণরূপে সাংঘর্ষিক বলে সম্মিলিত উলামা মাশায়েখের বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়। বিবৃতিতে বলা হয়, কোন মুসলমানই বিন্দুমাত্র ঈমান থাকতে মঙ্গল শোভাযাত্রা করতে পারে না। একজন ঈমানদার তা কখনও মেনে নিতে পারে না বা অন্য কাউকে উদ্ধুদ্ধ ও উৎসাহিত করতে পারে। ইহা মূলত বিজাতীয় সংস্কৃতির অংশ,যা ইসলাম বিদ্বেষী মহল, বে-দ্বীন, মুসলিম নামধারী মুরতাদ ও ইবলিসের প্ররোচনা।
বিবৃতি সম্মিলিত উলামা মাশায়েখ পরিষদের পক্ষ থেকে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলা হয়, কুরআনের আলোচ্য নির্দেশনার আলোকে মঙ্গল শোভাযাত্রা ও পশুআকৃতিরূপী সাজা চিরতরে হারাম ঘোষিত হয়েছে। মাদরাসাসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ মঙ্গল শোভাযাত্রা পালনের জন্য সরকারী সার্কুলার জারি করে সরকার কাদেরকে খুশী করতে চান তা বোধগোম্য নয়? ৯৫ ভাগ মুসলমানের এদেশে এহেন গর্হিত হারাম কাজ গোটা জাতির উপর চাপিয়ে দেয়ার দুঃসাহস সরকার দেখাবে না বলে শীর্ষ উলামায়ে কেরাম মনে করেন। তবে সরকারের মধ্যে ঘাপটি মেরে থাকা কতিপয় ইসলাম বিদ্বেষী মহল দেশকে অস্থিতিশীল করতে ও সরকারের অর্জন ক্ষুন্ন করতে যেকোনো ধরনের ষড়যন্ত্র ও উস্কানী দিচ্ছে কিনা সে ব্যাপারে সরকারের সজাগ দৃষ্টি কামনা করছি।

Share Button
Previous ‘পরমাণু হামলা করতে প্রস্তুত’ উত্তর কোরিয়া
Next চামড়া শিল্প ঐক্য পরিষদের কর্মসূচি ঘোষণা

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply