২৪ ঘণ্টার মধ্যে সুলতানা কামালকে গ্রেফতার করুন : হেফাজত

২৪ ঘণ্টার মধ্যে সুলতানা কামালকে গ্রেফতার করুন : হেফাজত

ঢাকা ৩ জুন ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সুলতানা কামালকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে হেফাজতে ইসলাম। সংগঠনের ঢাকা মহানগরের সহ-সভাপতি জুনায়েদ আল হাবীব বলেন, প্রধানমন্ত্রী মসজিদগুলোয় সৌর বিদ্যুতের ব্যবস্থা করেছেন, প্রত্যেক উপজেলায় একটি করে মসজিদ বানাবেন ঘোষণা দিয়েছেন। আর সুলতানা কামাল বলেছেন ভাস্কর্য থাকতে না দিলে মসজিদ থাকতে দেয়া হবে না। সাহস কত সুলতানা কামালের! রাজপথে নেমে দেখুন, হাড্ডি-গোস্ত রাখা হবে না। তিনি সরকারের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, সুলতানা কামালকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতার করুন। না হয় তাকে তসলিমা নাসরিনের মতো দেশের বাইরে পাঠিয়ে দিন। সুলতানা কামালের দেশ বাংলাদেশ নয়।

সুপ্রিম কোর্ট থেকে মূতি অপসারণের দাবিতে শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এ দাবি জানান।

ঢাকা মহানগর হেফাজতের সভাপতি মাওলানা নূর হোছাইন কাসেমীর সভাপতিত্বে মাওলানা নূর হোছাইন কাসেমী বলেন, গ্রিক দেবী অপসারণের কারণে আমরা গত শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছিলাম। কিন্তু অত্যন্ত বেদনার সাথে আজ আমাদের প্রতিবাদ সমাবেশ করতে হচ্ছে। মূর্তি অপসারণের পর আবার প্রতিস্থাপন তামাশা, এছাড়া আর কিছু নয়। অনতিবিলম্বে মূর্তি অপসারণ করা হোক, না হলে রমজানের পরে বৃহৎ আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। আমরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে বিশ্বাসী, জ্বালাও-পোড়াওয়ে বিশ্বাসী না।

মাওলানা জুনায়েদ আল হাবীব আরো বলেন, বদরের যুদ্ধ রমজান মাসে হয়েছে। মক্কায় যত মূর্তি সরানো হয়েছে, সেটা রমজান মাসেই সরানোর হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ও প্রধান বিচারপতি মূর্তি কি এখান থেকে সরাবেন? নাকি আমরা আসব? যদি আমাদের আসতে হয়, বাংলাদেশে পূজা মণ্ডপ ছাড়া আর কোথাও মূর্তি রাখা হবে না। প্রশাসন ও সরকারকে বলতে চাই, আমরা যে আসতে পারি, আপনাদের নিশ্চয় তা জানা আছে। ২৪ ঘণ্টায় কোটি মানুষ ঘেরাও করবে হাই কোর্ট। মেহেরববানি করে আমাদের আসতে বাধ্য করবেন না। আমরা যে দিন আসব, পুলিশ ঠেকাতে পারবে না। আমরা যে দিন আসব, কাফনের কাপড় হাতে নিয়ে আসব।

মাওলানা মামুনুল হক বলেন, বাংলাদেশ স্পষ্টভাবে দু’টি শিবিরে বিভক্ত। একটি মূর্তির পক্ষে, অন্যটি মূর্তির বিরুদ্ধে। সুপ্রিম কোর্টের সামনে মূর্তি স্থাপন করা হয়েছে ভিনদেশী এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য। সুপ্রিম কোর্টের কোনো স্থানেই মূর্তি থাকতে দেয়া হবে না। হেফাজতের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মাওলানা মামুনুল হক বলেন, সেদিনের জন্য প্রস্তুত থাকুন, প্রয়োজনে আল্লামা আহমদ শফী ডাক দেবেন। এ দেশের আলেম সমাজ রাজপথে নামবে। থেমিসের গলা রশি বেঁধে প্রয়োজনে বুড়িগঙ্গায় ভাসিয়ে দেয়া হবে।

Please follow and like us:
Previous শ্রেষ্ঠতম বাজেট দিয়েছি: অর্থমন্ত্রী
Next প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর বেপরোয়া হেফাজত : নির্মূল কমিটি

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply