বাংলাদেশের বিদায়, ফাইনালে ভারত

বাংলাদেশের বিদায়, ফাইনালে ভারত

১৫ জুন ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): অল্প রানের পুঁজি নিয়ে বোলারদের যেই রকম পারফরম্যান্স উপহার দেয়ার দরকার ছিল তার ছিঁটেফোটাও লক্ষ্য করা যায়নি। ফলাফল যা হবাই তা-ই হলো। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে বাংলাদেশকে ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে ভারত।

তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহীমের ব্যাটে একসময় ৩০০ রান সহজেই হবে এমন ধারণা ছিল সবার।তারা দু’জন দুর্দান্তই খেলছিল । কিন্তু হঠাৎ ফিরে এলো পুরনো ভূত। তালগোল পাকিয়ে ফেললেন বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা। উইকেট বিলিয়ে দিলেন অনাআাসেই। হতাশাজনক গল্প রচিত হলো এজবাস্টনে। তবে বিপদের মুখে জ্বলে উঠল মাশরাফির ব্যাট। আর তাতেই শেষ পর্যন্ত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ভারতকে ২৬৫ রানের লক্ষ্যমাত্রা ছুড়ে দিয়েছে বাংলাদেশ।

বার্মিংহামের এজবাস্টনে টসে জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠান ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। একসময় ৩ উইকেটে ১৮০ রান করে ফেলেছিল টাইগাররা। কিন্তু মাঝপথের ধসের কারণে শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৬৪ রানে আটকে যায় বাংলাদেশের ইনিংস।ভারতকে ২৬৫ রানের লক্ষ্য দিল বাংলাদেশ। ২৬৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমেছে ভারত। রোহিত শর্মাম ও শিখর ধাওয়ান মিলে দারুণ জুটি গড়ে বাংলাদেশের কাছ থেকে ম্যাচ বের করে নেন। তবে ভারতের রান ১০০-তে পৌঁছার আগেই ধাওয়ানকে আউট করে বাংলাদেশ শিবিরে স্বস্তি ফেরান মাশরাফি।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ১৯ ওভার শেষে ভারতের সংগ্রহ ১ উইকেটে ১২৪ রান। রোহিত ৬৫ ও কোহলি ১৩ রান নিয়ে ব্যাট করছেন। ধাওয়ান ৪৬ রান করে আউট হওয়ার আগে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির এবারের আসরে সর্বোচ্চ রানের মালিক বনেন।

ওপেনার তামিম ইকবাল ৮২ বলে ৭টি চার ও ১টি ছক্কার সাহায্যে ৭০ রানের দারুণ ইনিংস খেলেন। মুশফিক ৮৫ বলে করেন ৬১ রান। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ২১, সাব্বির রহমান ১৯, মোসাদ্দেক ১৫ এবং মাশরাফি করেন ২৫ বলে ৩০ রান।

ভারতের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন ভুবনেশ্বর কুমার, জসপ্রিত বুমরাহ ও কেদার যাদব। রবীন্দ্র জাদেজা নেন একটি উইকেট।

ভুবনেশ্বর কুমারের করা প্রথম ওভারের শেষ বলে কাট করতে গিয়ে ব্যাটের কানায় লেগে বোল্ড হন সৌম্য সরকার। অথচ অফস্টাম্পের বাইরের বলে কাট করার কোনো দরকারই ছিল না।

এরপর ক্রিজে তামিম ইকবালের সঙ্গে যোগ দেন সাব্বির রহমান। দারুণ সব বাউন্ডারিতে বাংলাদেশি সমর্থকদের মুখে হাসি ফোটান সাব্বির। তবে সেই হাসি মিইয়ে যেতে সময় লাগেনি। ভুবনেশ্বরের করা স্লোয়ার বলে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে জাদেজার হাতে সহজতম ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন এই স্টাইলিশ ব্যাটসম্যান।ভারতকে ২৬৫ রানের লক্ষ্য দিল বাংলাদেশ

শুরুতেই ২ উইকেট হারানোর পর তামিম-মুশফিক ইনিংস মেরামতে মনোযোগী হন। এই দুজন দেখেশুনে খেলার পাশাপাশি রানের গতি বাড়ানোতেও মনোযোগী হন। ফলে বাজে সময় পেছনে ফেলে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। তামিম-মুশফিক ১২৭ বলে ১২৩ রানের দুর্দান্ত জুটি গড়ে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফিরিয়ে আনেন। কেদার যাদবের করা ২৮তম ওভারের শেষ বলে তামিম বোল্ড হয়ে ফিরলে প্রতিরোধ ভাঙে।

তামিমের বিদায়ের পর সাকিবের দিকে তাকিয়ে ছিল বাংলাদেশ। তবে সমর্থকদের হতাশ করেন সাকিব। জাজেদার করা ৩৪তম ওভারের দ্বিতীয় বলে কাট করতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ধোনিকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন এই টাইগার ব্যাটসম্যান। এরপর কেদার যাদবের করা ৩৫তম ওভারের দ্বিতীয় বলে কোহলিকে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন মুশফিক।ভারতকে ২৬৫ রানের লক্ষ্য দিল বাংলাদেশ

ষষ্ঠ উইকেটে ছোট্ট প্রতিরোধ গড়ে তোলেন মোসাদ্দেক-মাহমুদউল্লাহ। এই দুজন ৪৩ বলে ৪৪ রানের জুটি গড়েন। তবে দলীয় ২১৮ রানের মাথায় মোসাদ্দেক এবং ২২৯ রানের মাথায় মাহমুদউল্লাহ ফিরে গেলে বেশ কোণঠাসা হয়ে পড়ে বাংলাদেশ। তবে মাশরাফি ও তাসকিনের মধ্যকার দারুণ জুটিতে শেষ পর্যন্ত লড়াই করার পুঁজি পায় বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ-ভারত সেমিফাইনাল ম্যাচে জয় পাওয়া দল রোববার ফাইনালে পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে। বুধবার প্রথম সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে ফাইনালে জায়গা করে নেয় পাকিস্তান।

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মুশফিকুর রহীম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন, তাসকিন আহদে, মাশরাফি বিন মুর্তজা, রুবেল হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান।

ভারতীয় একাদশ: রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, বিরাট কোহলি, যুবরাজ সিং, এমএস ধোনি, কেদার যাদব, হার্দিক পান্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, ভুবনেশ্বর কুমার, রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও জসপ্রিত বুমরাহ।

Share Button
Previous ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জিহানকে বেগমগঞ্জে সংবর্ধনা
Next বাংলাদেশ ও সুইডেনের একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply