পাপোশ তৈরির কথা বললেই অজ্ঞান ‘ধর্ষক বাবা’

পাপোশ তৈরির কথা বললেই অজ্ঞান ‘ধর্ষক বাবা’

৩১ আগস্ট ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): দুই শিষ্যকে ধর্ষণের জেরে জেলে ঢোকার পর থেকেই নানা ধরনের ‘নাটক’ চালিয়ে যাচ্ছেন ভারতের হরিয়ানার বিতর্কিত ধর্মগুরু গুরুমিত রাম রহিম সিং। ধর্ষক ‘বাবা’ রোহতকের সুনারিয়া জেলে আসার পর থেকে বিনোদনের নানা রসদ জুগিয়ে যাচ্ছেন। আদালতের নিয়ম অনুযায়ী তাকে সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। সেইমতো হরিয়ানার সাজাপ্রাপ্ত ধর্ষক বাবাকে পাপোশ তৈরির কাজ দিয়েছে জেল কর্তৃপক্ষ।

বুধবার থেকেই তাকে সেই কাজের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। কিন্তু পাপোশ তৈরির কাজে ফাঁকি দেয়ার জন্য অসুস্থতার ভান করছেন তিনি। কাজ না করার জন্য মাটিতে গড়াগড়ি দিয়ে অজ্ঞান হওয়ার নাটক করছেন। ক্ষেপে গিয়ে মাঝে মাঝেই উচ্চপদস্থ কারা কর্মকর্তাদের অভিশাপও দিচ্ছেন ডেরা সাচ্চা সৌদার প্রধান।

এদিন জেলের যেখানে বন্দিদের নানা কাজ করতে হয় সেই জায়গায় গিয়ে গুরমিত রাম রহিমকে পাপোশ তৈরি করতে বলা হলে তিনি প্রথমে তা অস্বীকার করেন। তারপর শুরু করেন দফায় দফায় নাটক।

প্রতি মুহূর্তে গুরমিতের নাটক দেখে হেসে গড়িয়ে পড়ছেন সহবন্দিরা। বন্দিদের কয়েকজনকে ডেকে নিয়ে ভগবানের বাণীও শোনান গুরমিত। এদিকে গুরমিতের নাটক বন্ধ করতে গিয়ে নাজেহাল দশা হয় কারা কর্মকর্তাদের। মঙ্গলবার সুনারিয়া জেলে গুরমিতের প্রতি বিশেষ নজর রাখার দায়িত্ব থাকা

এক কারা কর্মকর্তা ডিউটি থেকে ফিরে তার ঘনিষ্ঠদের বলেন, ‘বাবাজিকে নিয়ে আর পারা যাচ্ছে না। জেলের ভেতরে ‘ননস্টপ’ নাটক করে চলেছেন ওই ধর্ষক ‘বাবা’। কোনো কাজ করছেন না। তাকে পাপোশ তৈরি করতে বললেই অজ্ঞান হয়ে যাওয়ার ভান করছেন। কারা কর্মকর্তারা কাজ করার জন্য জোর করলে তাদের অভিশাপ দিচ্ছেন।’

রোহতক জেলের কর্তব্যরত এক অফিসারের কথায়, বন্দিদের কাজের সময় শেষ হয়ে গেলেই দিব্যি সুস্থ হয়ে বসে থাকছেন গুরমিত। তবে এখন পর্যন্ত জেলের খাবার মুখে তোলেননি। দুধ, তরল খাবার খেয়েই রয়েছেন। প্রথমদিন ঘুপচি কুঠুরিতে চুপচাপ ছিলেন। তারপর কাজ করতে দেয়া হলেই নাটক শুরু করেন। মাথা ঘুরে পড়ে যাওয়ার অভিনয় করেন।

Share Button
Previous ঝাল খাওয়ার প্রতিযোগিতা!
Next ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply