নতুন বাড়িতে মাশরাফির ঈদ

নতুন বাড়িতে মাশরাফির ঈদ

নড়াইল ২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ (গ্লোবটুডেবিডি): ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’ নড়াইলে ঈদুল আযহার নামাজ আদায় করেছেন। শনিবার সকাল সাড়ে ৭টায় নড়াইল কেন্দ্রীয় ঈদগাহে সবার সাথে ঈদের নামাজ আদায় করেন এই ক্রিকেট তারকা। নামাজ শেষে মুসল্লিদের সাথে কোলাকুলি ও শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এ সময় দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানান বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেট দলপতি।

মাশরাফিসহ নড়াইল কেন্দ্রীয় ঈদগাহে নামাজ পড়েন জেলা প্রশাসক এমদাদুল হক চৌধুরী, পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম, জেলা পরিষদ প্রশাসক সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, পৌর মেয়র জাহাঙ্গীর বিশ্বাসসহ মুসল্লিরা ।

পরিবার-পরিজনসহ ভক্তদের সাথে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে গত ৩১ আগস্ট ঢাকা থেকে নড়াইলে আসেন মাশরাফি। এবার নড়াইলের মহিষখোলায় নতুন বাড়িতে ঈদ করছেন মাশরাফি ও তার পরিবার। মায়ের স্বপ্ন পূরণে নির্মিত হয়েছে দ্বিতলা ‘মর্তুজা কটেজ’। মাশরাফির মা হামিদা মর্তুজা বলাকা বলেন, ছেলের দেয়া নতুন বাড়ি পেয়ে খুশি হয়েছি। এ এক অন্যরকম অনুভূতি। আর মাশরাফি যেন সারাজীবন মানুষের ভালোবাসা নিয়ে বেঁচে থাকতে পারে।

প্রায় তিন কাঠা জমির ওপর নতুন দুইতলা (ডুপ্লেক্স) বাড়ি নির্মাণ করিয়েছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। দ্বিতলা বাড়িটির প্রতিটি তলায় রয়েছে এক হাজার ২৫০ স্কয়ার ফিট জায়গা। এই বাড়ির দ্বিতীয় তলায় রয়েছে-একটা বড় রুমসহ চারটি বেডরুম। প্রতিটি বেডরুমের সাথে বাথরুম ও বারান্দা। এছাড়া বড় একটি বারান্দা বা ব্যালকনি রয়েছে। দ্বিতলায় আরো আছে পারিবারিক কক্ষ (ফ্যামিলি লিভিং রুম) ও হালকা রান্না ঘর (ড্রাই কিচেন)। এই বাড়িটির নিচতলায় রয়েছে বড় হল রুম, ডাইনিং, রান্নাঘর, গেস্ট বেড রুম, কমন বাথরুম ও গাড়ি পার্কিং ব্যবস্থা। এদিকে, ভক্তদের জন্য নিচতলায় থাকছে বড় হলরুম। এই খবরে খুশি মাশরাফি ভক্তরা। ভক্তরা বলেন, মাশরাফি ভক্তদের সব সময়ই মূল্যায়ন করেন। এজন্য তিনি তার নতুন বাড়িতেও ভক্তদের জন্য বড় হলরুম নির্মাণ করেছেন। এটা আমাদের বড় প্রাপ্তি।

অপরদিকে, আগামী ৪ সেপ্টেম্বর বিকেলে নড়াইলের উন্নয়নে ‘রান ফর নড়াইল’ এ অংশগ্রহণ করার কথা রয়েছে মাশরাফি বিন মর্তুজার।

Share Button
Previous সরকার একদলীয় শাসনব্যবস্থা চালুর পাঁয়তারা করছে : ফখরুল
Next চট্টগ্রাম টেস্টে প্রথম দিনের নায়ক মুশফিকই

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply