রাজনীতিবিদরা সৎ ও নিষ্ঠাবান হলে দেশের উন্নতি হয় : প্রধানমন্ত্রী

রাজনীতিবিদরা সৎ ও নিষ্ঠাবান হলে দেশের উন্নতি হয় : প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা ৮ জানুয়ারি ২০১৮ (গ্লোবটুডেবিডি): প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেছেন, রাজনীতিবিদরা সৎ, নিষ্ঠাবান হলে দেশের উন্নতি হয়। মরহুম মন্ত্রী ছায়েদুল হক ও সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফার ব্যক্তি জীবনে সততা, নিষ্ঠা ও একাগ্রতার জন্য মানুষের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন।

রোববার বিকেলে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে দশম জাতীয় সংসদের ১৯তম (সংসদের শীতকালীন) অধিবেশনে মরহুম মন্ত্রী, মেয়র, সাবেক ডেপুটি স্পিকার ও সংসদ সদস্যসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিদের শোকপ্রস্তাবের ওপর বক্তৃতায় অংশ নিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন। এছাড়া শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় মরহুম এসব গুণী ব্যক্তিত্বের ব্যক্তিজীবনের বর্ণনা করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, সংসদ সদস্য আব্দুল মতিন খসরু, চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, সংসদ সদস্য এ বি এম তাজুল ইসলাম, কামাল আহমেদ মজুমদার, শওকত আলী বাদশা, ফজিলাতুন নেছা বাপ্পী প্রমুখ।

অধিবেশনে আলোচনা শেষে শোকপ্রস্তাব গৃহীত হয়। এরপর বিদায়ী মরহুম নেতাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে এক মিনিট নীরবতা পালন ও দোয়া করা হয়।

১৮তম অধিবেশনের পর থেকে ১৯তম অধিবেশন শুরুর আগে একজন মন্ত্রী, দুই মেয়রসহ নয়জন সংসদ সদস্য মারা গেছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হক, সাবেক ডেপুটি স্পিকার আখতার হামিদ সিদ্দিকী, সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফা, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক।

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের পর সংসদে কার্যপ্রণালী বিধি অনুযায়ী কোনো সংসদ সদস্য মারা গেলে তার নামে শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনা শেষে অধিবেশন মুলতবি ঘোষণা করা হয়। যেহেতু বছরের প্রথম অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণ দেয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে তাই শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনার পর সংসদ অধিবেশন কিছু সময়ের জন্য মুলতবি ঘোষণা করা হয়। এরপর সন্ধ্যায় ৬টায় রাষ্ট্রপতি তার স্বাগত ভাষণ দেন।

শোক প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী ছায়েদুল হককে স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ছায়েদুল হকের মতো একজন সৎ ও নিষ্ঠাবান মন্ত্রী পেয়েছিলাম। তিনি দক্ষতা ও সততার সাথে মন্ত্রণালয় চালিয়ে দেশের উন্নয়নে ব্যাপক অবদান রেখেছেন। দেশের মৎস্য সম্পদ উন্নয়নে তার ভূমিকা রয়েছে।

জনপ্রিয়তার কারণে ২০০১ সালের ষড়যন্ত্রের নির্বাচনেও ছায়েদুল হক সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০১ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সব ধরনের প্রচেষ্টা করেও নির্বাচনে তাকে হারাতে পারেনি।

সংসদ সদস্য গোলাম মোস্তফাকে স্মরণ করে তিনি বলেন, গোলাম মোস্তাফা তৃণমূলের নেতা ছিলেন। তিনি স্কুলে শিক্ষাকতা করতেন। প্রত্যন্ত অঞ্চলে পড়ে থেকে সব সময় আওয়ামী লীগের জন্য কাজ করতেন।

Share Button
Previous অর্ধশতাব্দীর রেকর্ড ভঙ্গ: তেতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২.৬ ডিগ্রি
Next শেষ হচ্ছে নিরব আইরিনের রৌদ্রছায়া

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply