চারদিনেই হারল ভারত

চারদিনেই হারল ভারত

৯ জানুয়ারি ২০১৮ (গ্লোবটুডেবিডি): ভাগ্যিস তৃতীয় দিনে বৃষ্টির কারণে খেলা হয়নি। নতুবা তিনদিনেই দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরে যেতে পারত ভারত। আজ চতুর্থ দিনে মাত্র ৬৪ ওভার খেলা হয়। তাতেই দুই দলের ১৮ উইকেটের পতন ঘটেছে।

২০ ওভার খেলে ২ উইকেট হারিয়ে ৬৫ রান তুলে দ্বিতীয় দিন শেষ করা দক্ষিণ আফ্রিকা আজ সোমবার চতুর্থ দিনে ২১.২ ওভারে আরো ৬৫ রান যোগ করতেই হারায় বাকি ৮টি উইকেট। এরপর ২০৮ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৪২.৪ ওভারে ভারত হারায় তাদের ১০টি উইকেট। রান করতে পারে মাত্র ১৩৫। তাতে ৭২ রানের জয় দিয়ে তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজ শুরু করেছে প্রোটিয়ারা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :
দক্ষিণ আফ্রিকা : ২৮৬ ও ১৩০।
ভারত : ২০৯ ও ১৩৫।
ফল : দক্ষিণ আফ্রিকা ৭২ রানে জয়ী।
ম্যাচসেরা : ভারনন ফিলান্ডার।
সিরিজ : দক্ষিণ আফ্রিকা ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে।

সোমবার দক্ষিণ আফ্রিকাকে মাত্র ১৩০ রানেই গুড়িয়ে দিয়ে জয়ের স্বপ্ন দেখছিল ভারত। অবশ্য ক্রিকেটবোদ্ধারা জয়ের সম্ভাবনা দেখছিলেন উভয় দলের। ২০৮ রান তাড়া করে ভারতের মতো লম্বা ব্যাটিং লাইনআপের দল জিততে পারবে না সেটা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছিল না। কিন্তু শুরু থেকেই দক্ষিণ আফ্রিকার পেসাররা বিভ্রান্ত করতে শুরু করে ভারতের টপ অর্ডারকে। শুরুতে দুইবার আউট হয়েও রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান ভারতের দুই ব্যাটসম্যান।

কিন্তু ৩০ রানের মাথায় শিখর ধাওয়ান আউট হওয়ার পর আসা-যাওয়ার মিছিল শুরু হয়। একই রানে মুরালি বিজয়ও আউট হন। ৩৯ রানে চেতেশ্বর পূজারা আউট হওয়ার পর কোহলি ও রোহিত শর্মা জুটি বাঁধেন। চতুর্থ উইকেটে তারা দুজন ৩২ রান তুলে আশা জাগান। কিন্তু দলীয় ৭১ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ২৮ রানে বিরাট কোহলি আউট হলে ব্যাকফুটে চলে যায় ভারত। ৭৬ রানে রোহিত শর্মা ১০ রান করে আউট হলে বিপর্যয়ে পড়ে যায় সফরকারীরা।

৭৭ রানের মাথায় প্রথম ইনিংসে ৯৩ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলা হার্দিক পান্ডিয়া আউট হলে চোখে সরষে ফুল দেখতে শুরু করে ভারতের মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা। ৮২ রানে ঋদ্ধিমান সাহার উইকেট হারানোর পর অষ্টম উইকেটে রবীচন্দ্রন অশ্বিন ও ভুবনেশ্বর কুমার কিছুটা প্রতিরোধ গড়েন। তারা দুজন সর্বোচ্চ ৪৯ রানের জুটি গড়ে পরাজয়ের ব্যবধান কমান। ১৩১ রানের মাথায় অশ্বিন ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ৩৭ করে আউট হওয়ার পর ভারতের পরাজয় সময়ের ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। ১৩৫ রানেই শেষ দুটি উইকেট হারিয়ে ৭২ রানের পরাজয় মেনে নেয় কোহলি বাহিনী।

বল হাতে ভারতের ব্যাটিং লাইনআপ গুড়িয়ে দেন ভারনন ফিলান্ডার। এই পেসার একাই নিয়েছেন ছয়-ছয়টি উইকেট। ১৫.৪ ওভার বল করে ৪ মেডেনসহ ৪২ রান দিয়ে ৬ উইকেট নেন তিনি। যা তার ক্যারিয়ার সেরা বোলিং। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন কাগিসু রাবাদা ও মরনে মরকেল।

প্রথম ইনিংসে ৩টি ও পরের ইনিংসে ক্যারিয়ার সেরা বোলিং করে (৪২ রানে ৬ উইকেট) ম্যাচসেরা নির্বাচিত হয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার ভারনন ফিলান্ডার।

Share Button
Previous ফেনীতে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় ইউপি সদস্য নিহত
Next একুশে বইমেলায় এবার বরাদ্দ হয়েছে ৬৬২টি স্টল

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply