‘হকার বসবে : এটা শামীম ওসমানের নির্দেশ’

‘হকার বসবে : এটা শামীম ওসমানের নির্দেশ’

নারায়ণগঞ্জ ১৬ জানুয়ারি ২০১৮ (গ্লোবটুডেবিডি): নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার বসার নির্দেশ দিয়েছেন এমপি শামীম ওসমান। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাউকে না খাইয়ে রাখার রাজনীতি করেন না। দেশের প্রতিটি মানুষের মুখে খাবার তুলে দেয়ার রাজনীতি করেন তিনি। সেই নেত্রীর দেশে এভাবে হকারদের পেঠে লাথি মারা হবে সেটা সহ্য করা হবে না।

সোমবার বিকেলে শহরের চাষাঢ়ায় সলিমুল্লাহ সড়কে হকারদের সমাবেশে শামীম ওসমান ওই নির্দেশ দেন। এতে কয়েক হাজার হকার ও তাদের পরিবারের লোকজন বিভিন্ন ধরনের প্লেকার্ড ও ফেস্টুন নিয়ে হাজির হন। সেখানে বক্তব্যে হকার নেতারা পুর্নবাসনের আগে ফুটপাতে বসার দাবি তোলেন।
বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ সিপিবি ও ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় হকার্স ইউনিয়নের সদস্য কবির হোসেন, ইকবাল হোসেন, আবদুর রহিম মুন্সী, আসাদুল ইসলাম প্রমুখ।

বক্তব্যের শুরুতেই শামীম ওসমান বলেন, যারা ক্ষুধার জ্বালা বুঝবে না তারাই হকারদের উচ্ছেদ করে। ২ বেলা না খেয়ে থাকুন দেখবেন বুঝবেন না খাওয়ার কষ্ট কী। আমিও চাই না ফুটপাতে হকার থাকুক। এভাবে হকার উচ্ছেদ সমুচিত না। অন্তত ২ মাস আগে তাদের নোটিশ দেয়া প্রয়োজন ছিল না। আর কোনো কোনো মৌসুম এলেই হকারদের উপর অত্যাচার হয়। ঈদের সময়ে, নববর্ষ আর শীতের সময়েই কেন হকারদের উচ্ছেদ হয়? হকার উচ্ছেদ করে দিলাম কিন্তু কেউ চিন্তা করলাম না ওই হকার আজ কী খাবে আগামীকাল কী খাবে।

শামীম ওসমান বলেন, ‘আমার বড় ভাই সেলিম ওসমান চিঠি দিয়েছিলেন। সিটি করপোরেশনের কর্মচারী দিয়ে উত্তর দিয়ে দিবেন এটা হতে পারে না। উনি ভদ্র মানুষ। কিন্তু আমি সেলিম ওসমান না আমি শামীম ওসমান এটা মনে রাখতে হবে। আমার ছোটবোন বলেছে আমি নাকি ২৫ কোটি টাকা খরচ করেছি। দোয়া করবেন যাতে আগামীতে আমি ২৫ শ’ কোটি টাকা খরচ করতে পারি। কারণ আমাদের খরচ করার মানসিকতা আছে। যদি হকারদের জন্য মার্কেট করতে হয় তাহলে সেটা সিটি করপোরেশন করবে। কারণ এটা তাদের দায়িত্ব। যারা আমার বিরুদ্ধে কথা বলে তাদের জবাব দিতে ২ মিনিটও লাগবে না শামীম ওসমানের। কিন্তু আল্লাহ আমাকে অনেক ধৈর্য দিয়েছেন। আল্লাহ আমাকে অনেক রহমত দিয়েছে। আমি শামীম ওসমান নির্দেশ দিলাম আগামীকাল (১৬ জানুয়ারি) বিকেল ৫টা হতে শহরে হকার বসবে। আর আগামী ২১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রতিদিন বিকেল ৫টা হতে রাত ১০টা পর্যন্ত হকার বসবে একটি নিয়ম শৃঙ্খলার মধ্য দিয়ে। এর মধ্যে তাদের বিকল্প ব্যবস্থা করতে হবে। প্রয়োজনে আমাকেও ডাকতে পারেন। আমি পুলিশ প্রশাসনকে বলতে চাই কোনো পুলিশ লাথি তো দূরের কথা গালিও দিতে পারবে না। আর হকারদের বলবো যদি আমাদের কেউ মারধর করে মার খাবেন তার পর দেখবেন শামীম ওসমান এর পাল্টা জবাব কী নেয়। এটা আমার কোনো হুকুম বা আদেশ না এটা আমার নির্দেশ। হকারদের বিকল্প ব্যবস্থা না করে যদি উঠানোর চেষ্টা করেন তাহলে সেটা হবে শামীম ওসমানের মৃত্যুর পর মৃত্যুর আগে না।

শামীম ওসমান। বলেন, আমি মনে করেছিলাম ২৫ দিনে হকার ইস্যুতে বিএনপি অনেক কিছু করবে। কিন্তু তারা কেউ এগিয়ে আসেনি। তারা যেহেতু ২৫ দিনেও পারেনি সেহেতু আগামী ২০১৮ সালের নির্বাচনেও পারবে না। বিএনপির এমন কাপুরুষত্ব রাজনীতি প্রমাণিত।

Share Button
Previous বিএনপির মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল
Next ভাড়ার টাকায় ফ্ল্যাট দিচ্ছে নিটল আয়াত প্রপার্টিজ

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply