মোর্শেদাসহ ছাত্রলীগের ২৪ জনকে স্থায়ী বহিষ্কার

মোর্শেদাসহ ছাত্রলীগের ২৪ জনকে স্থায়ী বহিষ্কার

ঢাকা ১৭ এপ্রিল ২০১৮ (গ্লোবটুডেবিডি): গত ১০ এপ্রিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া কামাল হলের সহসভাপতি মোর্শেদা খানমের পা কেটে রক্তাক্ত হওয়ার ঘটনায় বহিষ্কার হয়েছিলেন হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইফফাত জাহান ইশা। বহিষ্কারের তিন দিন পর ১৩ এপ্রিল তার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে নেয় সংগঠনটি।

এর তিন দিন পর সোমবার সেই মুর্শেদাকে বহিষ্কার করল ছাত্রলীগ। একই সঙ্গে ওই ঘটনায় হল শাখা ছাত্রলীগের ২৪ নেতা–কর্মীকে স্থায়ী বহিষ্কার করেছে ছাত্রলীগ।

সোমবার রাতে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনের সই করা বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বহিষ্কৃত নেতারা হলেন- ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাহিত্যবিষয়ক সম্পাদক খালেদা হোসেন মুন, সুফিয়া কামাল হল শাখার সহসভাপতি মোর্শেদা খানম, আতিকা হক স্বর্ণা, মিরা, সাংগঠনিক সম্পাদক জান্নাতী আক্তার সুমি, সহসম্পাদক শ্রাবণী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শারমিন আক্তার, তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক উপ-সম্পাদক আশা।

বহিষ্কৃত কর্মীদের মধ্যে রয়েছেন- নাট্যকলা বিভাগের শিক্ষার্থী লিজা ও মিথিলা ইসরাত চৈতী, চারুকলা বিভাগের সুদীপ্তা মণ্ডল ও অনামিকা দাশ, সংগীত বিভাগের সোনম সীথি, প্রিয়াঙ্কা দে ও প্রভা, ভূতত্ত্ব বিভাগের শিলা ও জাকিয়া, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের মনিরা ও রুনা, নৃবিজ্ঞান বিভাগের শারমিন সুলতানা, উর্দু বিভাগের মিতু, শান্তি ও সংঘর্ষ বিভাগ জুঁই, বাংলা বিভাগের তানজিলা ও সমাজকল্যাণ বিভাগের তাজ।

এ ব্যাপারে সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, সুফিয়া কামাল হলের সেই দিনের ঘটনায় তদন্ত কমিটি করা হয়েছিল। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের ভিত্তিতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ওই ঘটনায় যারা প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে জড়িত ছিলেন, শুধু তাদের স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার আন্দোলন চলাকালে ১০ এপ্রিল রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া কামাল হলে বিশৃঙ্খল পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

অভিযোগ ওঠে, ওই হলের সভাপতি ইফফাত জাহান ইশা কোটা সংস্কার আন্দোলনে অংশ নেওয়ায় শিক্ষার্থী মোর্শেদাকে নির্যাতন করেন। পরে বিষয়টি নিয়ে রাতেই ক্যাম্পাস উত্তাল হয়ে উঠলে ইশাকে একাধারে হল, ছাত্রলীগ ও বিশ্ববিদ্যায় থেকে বহিষ্কার করা হয়। পরে জানা যায়, ইশার বিরুদ্ধে পা কেটে দেওয়ার অভিযোগকারী শিক্ষার্থী সুফিয়া কামাল হল শাখা ছাত্রলীগেরই সহসভাপতি মোর্শেদা খানম। তিনি নিজেই কাঁচে লাথি দিয়ে পা কেটে ছিলেন। এরপর ১৩ এপ্রিল ইশার বহিষ্কারাদেশ তুলে নেয় ছাত্রলীগ।

Share Button
Previous বাসে হাত হারানো রাজীব মারা গেছেন
Next আইপিএলে শ্লীলতাহানির শিকার শিক্ষিকা!

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply