টিকে রইল মুস্তাফিজদের আশা

টিকে রইল মুস্তাফিজদের আশা

৫ মে ২০১৮ (গ্লোবটুডেবিডি): প্রথম আট ম্যাচে জয় মাত্র দুটি। আইপিএলের প্লে-অফের আশা জিইয়ে রাখতে কাল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের জয়ই ছিল একমাত্র পথ। বাঁচা-মরার ম্যাচে মুস্তাফিজুর রহমানের মুম্বাই ৬ উইকেটে হারিয়েছে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে।

আগের দুই ম্যাচের মতো কালও অবশ্য একাদশে ছিলেন না মুস্তাফিজ। মুম্বাইয়ের জয়ের নায়ক রোহিত শর্মা ও ক্রুনাল পান্ডিয়া। এই দুজনের তিন ওভারের ঝোড়ো ব্যাটিংয়েই টিকে রইল মুম্বাইয়ের আশা।

ইন্দোরে ১৭৫ রান তাড়ায় শেষ চার ওভারে মুম্বাইয়ের দরকার ছিল ৫০ রান। পাঞ্জাব অধিনায়ক রবিচন্দ্রন অশ্বিন ১৭তম ওভারে বল তুলে দিলেন আফগানিস্তানের স্পিনার মুজিব জাদরানের হাতে। যিনি নিজের প্রথম তিন ওভারে নিয়েছিলেন ২ উইকেট।

তবে মুজিবের কোটার শেষ ওভারের প্রথম ও শেষ বলে লং অন ও মিড উইকেট দিয়ে দারুণ দুটি ছক্কা হাঁকান রোহিত। এই ওভারে সব মিলিয়ে আসে ১৪ রান।

পরের ওভারে মার্কাস স্টয়নিসকে তিন চার ও এক ছক্কায় ক্রুনাল তোলেন ২০ রান। শেষ দুই ওভারে চাই ১৬। ১৯তম ওভারে অ্যান্ড্রু টাইয়ের প্রথম তিন বলে ক্রুনালের একটি করে চার ও ছক্কা। শেষ বলে লেগ বাই থেকে বাউন্ডারিতে মুম্বাই ম্যাচ জিতে যায় এক ওভার বাকি থাকতেই।

ইন্দোরে নিজের সবশেষ আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওপেনিংয়ে নেমে ৪৩ বলে ১১৮ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেছিলেন রোহিত। অথচ কাল তিনি ব্যাটিংয়ে নামেন পাঁচ নম্বরে! তখন মুম্বাইয়ের দরকার ছিল ৪২ বলে ৭৫ রান।

হার্দিক পান্ডিয়ার ১৩ বলে ২৩ রানের ‘ক্যামিও’ মুম্বাইয়ের আস্কিং রানরেট ধরে রাখে। হার্দিকের বিদায়ের পরই উইকেটে আসেন তার ভাই ক্রুনাল। পাঞ্জাবের বোলাররা হারিয়ে ফেলে লেংথ। সেই সুযোগটা কাজে লাগিয়ে মুম্বাইকে অসাধারণ এক জয় এনে দেন রোহিত-ক্রুনাল।

মাত্র ২১ বলে এই জুটির সংগ্রহ ৫৬ রান। ১২ বলে ৪ চার ও ২ ছক্কায় ২৯ রান করেছেন ক্রুনাল। ১৫ বলে এক চার ২ ছক্কায় ২৪ রান করেছেন অধিনায়ক রোহিত। ওপেনার সূর্যকুমার যাদবের ৪২ বলে ৫৭ রানের (৬ চার, ৩ ছক্কা) ইনিংসও রেখেছে বড় ভূমিকা।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ক্রিস গেইলের ৪০ বলে ৫০ রানের (৬ চার ২ ছক্কা) সুবাদে ৬ উইকেটে ১৭৪ রান করেছিল পাঞ্জাব। ১৫ বলে ২৯ রানে অপরাজিত ছিলেন স্টয়নিস।

শেষ তিন ওভারেই ৩৯ রান খরচ করে মুম্বাই। ৪ ওভারে ১৯ রানে এক উইকেট নিয়ে মুম্বাইয়ের সেরা বোলার জাসপ্রীত বুমরাহ। মিচেল ম্যাকক্লেনাগান, হার্দিক, মায়াঙ্ক মারকান্দে ও বেন কাটিংও নেন একটি করে উইকেট।

এই ম্যাচের আগে মুম্বাই ছিল পয়েন্ট টেবিলে আট দলের মধ্যে সবার নিচে। পাঞ্জাবকে হারিয়ে নয় ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে তারা উঠে এসেছে পাঁচ নম্বরে। অবশ্য পরের তিন দলের পয়েন্টও সমান ৬। কিন্তু নেট রানরেটে এগিয়ে থেকে মুম্বাই আছে পাঁচে। আট ম্যাচে তৃতীয় হারে পাঞ্জাব তিন নম্বর থেকে নেমে গেছে চারে।

Share Button
Previous ওআইসি পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সম্মেলন শুরু
Next সালমান আমারই কাছের মানুষ: কারিশমা

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply