আন্তর্জাতিক পরিবার দিবস উপলক্ষে বিআইআইটি’র সেমিনার

আন্তর্জাতিক পরিবার দিবস উপলক্ষে বিআইআইটি’র সেমিনার

ঢাকা ১৬ মে ২০১৮ (গ্লোবটুডেবিডি):  আন্তর্জাতিক পরিবার দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ইসলামিক থ্যট (বিআইআইটি) ১৫ মে ২০১৮ উত্তরাস্থ কনফারেন্স হলে ‘Family: A Primary Institute of the Ummah’ শীর্ষক একটি সেমিনারের আয়োজন করে। উক্ত সেমিনারে প্রায় ৫০টিরও বেশি পরিবার অংশগ্রহণ করে। বিআইআইটির নির্বাহী পরিচালক ড. এম আব্দুল আজিজের সভাপতিত্বে  সেমিনারে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন বিশিষ্ট লেখক, গবেষক এবং বি.আই.আই. টি’র সম্মানিত ফেলো মেম্বার মীর লুৎফুল কবির সা’দী। প্রবন্ধের উপর আলোচনা করেন ইসলামি ব্যাংক ট্রেনিং এবং রিসার্চ একাডেমির ফ্যাকাল্টি মিসেস মাসুমা বেগম।সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক সচিব, বিআইআইটি ট্রাষ্ট-এর চেয়ারম্যান শাহ্ আব্দুল হান্নান।মূল প্রবন্ধাকার জনাব মীর লুৎফুল কবির সা’দী বলেন, মানুষ হলো আশরাফুল মাখলুকাত। তাই
মানুষকে যে উদ্দেশ্যে আল্লাহ তায়ালা সৃষ্টি করেছেন, আল্লাহর সে উদ্দেশ্য যথাযথভাবে পালন করতে হলে মানুষকে পারিবারিক বন্ধন ধরে
রাখতে হবে। সেটা করতে হলে তাওহিদভিত্তিক পরিবার গঠন করা ছাড়া আমাদের অন্য কোনো উপায় নাই। মিসেস মাসুমা বেগম বলেন, আমাদের পরিবার ফোরাম থাকা অবশ্যই দরকার। কিন্তু বলেন, আমাদের পরিবারগুলো আজ ভাঙ্গনের মুখে। একদল পুরুষ মনে করেন নারীরা ঘরকন্না করবে, তাদের বহির্জগতে পদচারণার দরকার নাই আর একদল মনে করেন নারীদের ঘরের বাইরে আসা দরকার।নারীরা ঘরের মধ্যে আবদ্ধ থাকবে এটা হয় না। এভাবে পুরুষরা নারীদের প্রান্তিকভাবে দেখেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে শাহ্ আব্দুল হান্নান বলেন, ইতিহাস পর্যালোচনা করলে আমরা দেখতে পাই যে, শুরু থেকেই পরিবার প্রথা ছিল। আর ইসলামও শক্তিশালী পরিবার গঠনের উপর জোর দিয়েছেন। যদি তা না হতো তাহলে আল্লাহ তায়ালা শুধু আদম আ. অথবা শুধু হাওয়া আ.-কে সৃষ্টি করতেন। ইসলামে পরিবারের গুরুত্ব বুঝাতেই আল্লাহ তায়ালা তা না করে আদম (আ.) এবং হাওয়া (আ.) দু’জনকেই সৃষ্টি করেছেন।
পাশ্চাত্যবাদীদের কেউ কেউ পরিবারের বিরুদ্ধে জোরালো বক্তব্য দিলেও পাশ্চাত্যবাসী আজ হতাশ তাদের সমাজের বর্তমান অবস্থা দেখে। পরিবার ব্যবস্থা প্রায় ধ্বংশ হয়ে যাওয়ার ফলে দেখা যায়, ফ্রান্সে প্রায় ৫ মিলিয়ন মানুষ কুকুরের সাথে বসবাস করছে, মানুষ হয়েও তারা অন্য একজন মানুষকে বিশ্বস্ত¡ মনে করতে পারছে না। জনাব হান্নান বলেন, পরিবারের গুরুত্ব উপলব্ধি করেই জাতিসংঘ ১৫
মে আন্তর্জাতিক পরিবার দিবস হিসেবে ঘোষণা করেছে যা অত্যন্ত প্রশংসনীয়।
সভাপতির বক্তব্যে বিআইআইটির নির্বাহী পরিচালক, ড. এম আব্দুল আজিজ বলেন, জাতিসংঘ এ বছর আন্তর্জাতিক পরিবার দিবসের যে প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছে, তা অত্যন্ত সময়পোযোগী। কারণ সমগ্র বিশ্বে গুরুত্বপূর্ণ সামাজিক ভিত্তি হিসেবে পরিবারের ভূমিকা আজো অপরিসীম। শিল্প বিপ্লবের পর থেকে পশ্চিমা বিশ্বের উন্নত দেশগুলোতে পরিবারের প্রতি অনাগ্রহ সৃষ্টির প্রক্রিয়া শুরু হলেও পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ, সহমর্মিতা ও দৃঢ় বন্ধনের কারণে পরিবার এখনো প্রতিটি মানুষের কাছে সর্বপ্রথম বিদ্যাপীঠ এবং সর্বশ্রেষ্ঠ আশ্রয়স্থল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।

Share Button
Previous মাদক নির্মূলেও পুলিশ সফল হবে : প্রধানমন্ত্রী
Next কোটা আন্দোলনের নেতাদেরকে হত্যার হুমকি: উত্তাল ঢাবি

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply