যেসব বিষয়ে সতর্কতা দরকার

যেসব বিষয়ে সতর্কতা দরকার

২৪ মে ২০১৮ (গ্লোবটুডেবিডি): যদি আপনি সন্তানের বাবা/মা হতে চান, তাহলে আপনার কিছু বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন করা প্রয়োজন হবে। আপনার উর্বরতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে এমন ১৪টি বিষয় নিয়ে দুই পর্বের প্রতিবেদনের আজ থাকছে প্রথম পর্ব।

ধূমপান
ক্যালিফোর্নিয়ায় অবস্থিত অরেঞ্জ কোস্ট মেমোরিয়াল মেডিক্যাল সেন্টারের ফার্টিলিটি এক্সপার্ট এবং রিপ্রোডাক্টিভ এন্ডোক্রিনোলজিস্ট ডেভিড দিয়াজ বলেন, ‘ধূমপান পুরুষ ও নারী উভয়ের উর্বরতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করে, কিন্তু এটি বিশেষ করে নারীদের জন্য ক্ষতিকর।’ তিনি বলেন, ‘তামাকে ২৫০টিরও বেশি বাইপ্রোডাক্ট রয়েছে যা ওসাইট টক্সিক হিসেবে পরিচিত। এর প্রভাব এতই তীব্র যে এসব টক্সিন ডিম্বাশয়ের ফলিকলের ভেতরের ডিম্ব পরিবেশকে দূষিত করে।’ ধূমপান মেনোপজ ত্বরান্বিত করে আপনার উর্বর বছর কমিয়ে ফেলে। লস অ্যাঞ্জেলসে অবস্থিত সেন্টার ফর মেইল রিপ্রোডাক্টিভ মেডিসিন অ্যান্ড ভেসেক্টমি রিভার্সালের পরিচালক ফিলিপ ওয়ের্থম্যান বলেন, ‘পুরুষরাও ধূমপানের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে রেহাই পায় না। যেসব পুরুষেরা বাচ্চার বাবা হতে চায় তাদের ধূমপান করা উচিত নয়।’ সেকেন্ডহ্যান্ড স্মোকও কোনো পুরুষের স্ত্রীর উর্বরতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। ডা. ওয়ের্থম্যান বলেন, ‘পট স্মোকিংয়ের ক্ষেত্রে ক্ষতির পরিমাণ দ্বিগুণ। মারিজুয়ানা স্মোকিং ভয়াবহ। এটি মূলত আনফিল্টারড সিগারেট।’

অতিরিক্ত ওজন
আপনার উর্বরতা হচ্ছে শরীরের অনেক সিস্টেমের একটি যা জাঙ্ক ফুড খেলে ও ব্যায়াম না করলে সাফার করে। জাঙ্ক ফুড ভোজন ও নিষ্ক্রিয় জীবনযাপন ডায়াবেটিস ও ক্যানসারের মতো রোগের ঝুঁকি বাড়ানো ছাড়াও আপনার উর্বরতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। উর্বরতার ওপর ওজন বৃদ্ধিরও নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। পুরুষ ও নারী উভয়ের ক্ষেত্রে, চর্বি যত বাড়বে শরীর তত বেশি ইস্ট্রোজেন উৎপাদন করবে এবং হরমোনের ভারসাম্যহীনতা হচ্ছে উভয় লিঙ্গের মধ্যে বন্ধ্যাত্বের একটি প্রধান কারণ। ডা. দিয়াজ বলেন, ‘অতিরিক্ত ওজনের নারীদের ক্ষেত্রে, অতিরিক্ত ওজন ইনসুলিন রেজিস্ট্যান্সের কারণ হতে পারে, যা ডিম্বের কোয়ালিটি এবং ওভিউলেশনের ফ্রিকোয়েন্সি হ্রাস করে।’ ডা. ওয়ের্থম্যান বলেন, ‘স্থূল পুরুষদের ক্ষেত্রে, অতিরিক্ত ওজন শুক্রাশয়কে অতিরিক্ত তাপে রাখে, যার ফলে শুক্রানুর কোয়ালিটি কমে যায়।’

হট ইয়োগা ক্লাস
ডা. ওয়ের্থম্যান বলেন, ‘শুক্রাণু ধ্বংসের একটি কারণ হচ্ছে তাপ।’ তিনি ব্যাখ্যা করেন, ‘আদর্শগতভাবে, শুক্রাণু উৎপাদন করতে শুক্রাশয়ের তাপমাত্রা শরীরের মূল তাপমাত্রার চেয়ে দুই ডিগ্রী নিচে থাকা উচিত, এর কারণ হচ্ছে শুক্রাশয় শরীরের বাইরে অবস্থিত।’ যা কিছু শরীরকে গরম করে তা শুক্রাশয়কেও গরম করতে পারে। তাই যদি আপনি বাচ্চা নেওয়ার চেষ্টা করেন, তাহলে হট টাব, হট ইয়োগা, সাউনা, টাইট অন্তর্বাস বা পোশাক ও হট বাথ সম্পূর্ণরূপে পরিহার করুন। লয়েলো ইউনিভার্সিটি হেলথ সিস্টেম দ্বারা পরিচালিত একটি গবেষণা অনুসারে, ল্যাপটপ থেকে আগত তাপও শুক্রাণুর কোয়ালিটি হ্রাসের সঙ্গে জড়িত।

অ্যান্টিডিপ্রেস্যান্ট
পেনিস ভাস্কুলার সিস্টেমের সঙ্গে সংযুক্ত হওয়ার কারণে একজন পুরুষের লিঙ্গ খাড়া হওয়ার ক্ষমতা হ্রাস করতে পারে এমন ওষুধের একটি লম্বা তালিকা রয়েছে, এ কারণে তার স্ত্রীকে গর্ভবতী করার সামর্থ্যও কমে যায়। ডা. ওয়ের্থম্যান বলেন, ‘কিন্তু শুক্রাণুর ক্ষেত্রে আপনার একটি কমন ওষুধের ব্যাপারে বিশেষভাবে সতর্ক থাকার প্রয়োজন হবে। অ্যান্টিডিপ্রেস্যান্ট শুক্রাণুর ডিএনএ ড্যামেজ করতে পারে এবং সেক্সুয়াল পারফরম্যান্সও হ্রাস করতে পারে।’ ওষুধের ক্ষেত্রে নারীরা পুরুষের তুলনায় বেশি নিরাপদ অবস্থানে থাকে। ডা. দিয়াজ বলেন, ‘কেমোথেরাপিতে ব্যবহৃত অত্যধিক বিষাক্ত ওষুধ ছাড়াও নারীদের ডিম্ব অধিকাংশ ওষুধের প্রতি রেজিস্ট্যান্ট হয়ে থাকে।’ এমন অনেক ওষুধ আছে যা বিকাশমান ভ্রুণের ক্ষতি করতে পারে। যদি আপনি বাচ্চা নেওয়ার চেষ্টা করেন, তাহলে তার মানে এই নয় যে আপনি ওষুধ সেবন বন্ধ করে দেবেন। এ ব্যাপারে আপনি ও আপনার স্ত্রী/স্বামী উভয়েই চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলুন।

কফি
ডা. ওয়ের্থম্যান বলেন, ‘দিনে দুই কাপের অধিক কফি পান শুক্রাণু উৎপাদন ব্যাহত করে।’ তিনি পুরুষদেরকে কফি অভ্যাস বর্জন করে তাদের স্ত্রীদেরকে গর্ভবতী করার চেষ্টা চালাতে পরামর্শ দিচ্ছেন। নারীদের ক্ষেত্রে কফির নেতিবাচক প্রভাব আরো তীব্র, বিশেষ করে সেসব নারীদের ক্ষেত্রে যারা ইতোমধ্যে বন্ধ্যাত্বে ভুগছেন। ইউরোপিয়ান সোসাইটি অব হিউম্যান রিপ্রোডাকশন অ্যান্ড এম্ব্রিয়োলজি কর্তৃক উপস্থাপিত একটি গবেষণা অনুসারে, যেসব নারী উল্লেখযোগ্য পরিমাণে কফি পান করেছেন তাদের গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা ব্যাপকভাবে হ্রাস পায়। আমেরিকান জার্নাল অব অবস্টেট্রিকস অ্যান্ড গাইনিকোলজিতে প্রকাশিত একটি গবেষণায় পাওয়া যায়, প্রত্যহ দুই কাপ বা তার বেশি কফি পানে কোনো নারীর গর্ভপাতের ঝুঁকি দ্বিগুণ হয়।

ভেরিকোস ভেইন
ডা. ওয়ের্থম্যান বলেন, ‘পুরুষদের বন্ধ্যাত্বের এক নম্বর মেডিক্যাল কারণ হচ্ছে অণ্ডকোষের আশেপাশে ভেরিকোস ভেইন হওয়া।’ কোনো শিরা স্ফীত হয়ে যাওয়াকে ভেরিকোস ভেইন বলে, যা অধিকাংশ ক্ষেত্রে পায়ে দেখা যায়, কিন্তু শরীরের যেকোনো জায়গায় হতে পারে যেমন- জেনিটাল বা জনন সম্বন্ধনীয় অংশে। পুরুষদের অণ্ডকোষের ওপর ভেরিকোস ভেইন হলে শিরার বর্ধিত রক্তপ্রবাহ তাপমাত্রা বাড়াতে পারে এবং শুক্রাণুকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। নারীদেরও জেনিটাল ভেরিকোস ভেইন হতে পারে, কিন্তু যৌনসহবাসের সময় ভেরিকোস ভেইন ব্যথা সৃষ্টি না করলে তাদের গর্ভবতী হতে সমস্যা হয় না।

টিন্ডার হুক-আপ
সবাই জানে যে অসুরক্ষিত বা অনিরাপদ যৌনসহবাস কিছু মারাত্মক যৌনবাহিত রোগ ছড়াতে পারে, যা আপনার স্বাস্থ্যের ক্ষতি করে এবং এদের চিকিৎসা করা না হলে আপনার জীবননাশও হতে পারে। ডা. ওয়ের্থম্যান বলেন, ‘অনেক লোকজন যা অনুধাবন করতে পারে না তা হচ্ছে, কিছু যৌনবাহিত রোগ (বিশেষ করে গনোরিয়া ও ক্ল্যামিডিয়া) কত দ্রুত তাদেরকে অনুর্বর করে- প্রায়ক্ষেত্রে তাদের এ ধরনের রোগ হয়েছে তা জানার পূর্বে।’ তিনি যোগ করেন, ‘অনেক যৌনবাহিত রোগ প্রাথমিক পর্যায়ে উপসর্গ প্রকাশ করে না এবং চিকিৎসা করা না হলে তারা রিপ্রোডাক্টিভ ট্র্যাক্টে স্থায়ী প্রতিবন্ধকতা ও ক্ষত সৃষ্টি করতে পারে।’ ডা. দিয়াজ বলেন, ‘যৌনবাহিত রোগে নারীর উর্বরতা বেশি ঝুঁকিতে থাকে।’ তিনি আরো বলেন, ‘যৌনবাহিত রোগ প্রথমে যা ড্যামেজ করে তা হচ্ছে ফ্যালোপিয়ান টিউব বা গর্ভনালী, প্রতিবন্ধকতার কারণে টিউবে ডিম্ব প্রবেশ করতে পারে না। উর্বরতা সুরক্ষার জন্য ছেলে ও মেয়ে উভয়কেই এইচপিভি ভ্যাকসিন দেওয়া উচিত, যা হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলবে।’

Share Button
Previous সালমাদের টি-২০ বিশ্বকাপ বাছাই শুরু ৭ জুলাই
Next মালয়েশিয়ায় মন্ত্রীদের বেতন কমছে ১০ শতাংশ!

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply