গ্লোব এগ্রিকালচারাল কর্পোরেশনের অসাধারণ এক কৃষি-খামার

গ্লোব এগ্রিকালচারাল কর্পোরেশনের অসাধারণ এক কৃষি-খামার

আতিক হেলাল :  দেশের স্বনামধন্য শিল্প-প্রতিষ্ঠান গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যাল গ্রুপ অব কোম্পানিজ লি. তাদের অনেকগুলো সাফল্যের ধারাবহিকতায় আর একটি সময়োপযোগী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে, সেটি হলো কৃষি ।

যাকে নিরাপদ প্রাকৃতিক খাদ্য-আন্দোলন হিসেবে দেখছেন প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তারা। এর মধ্যে রয়েছে নিরাপদ মৎস্য, সবজি, ফল এবং ডেইরি ও পশু-খামার। গ্লোবের ডেইরি ও পশু-খামার প্রকল্পে বর্তমানে তিন শতাধিক গরু রয়েছে, যা থেকে দৈনিক ৫০০ লিটার দুধ উৎপাদন হচ্ছে।

আগামী এক বছরের মাথায় ১০০০ লিটার দুধ উৎপাদনের লক্ষমাত্রা রয়েছে। এছাড়া, এবারের কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে গ্লোবের নিজস্ব খামারে সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক প্রজননের মাধ্যমে উৎপাদিত উন্নত মানের অন্তত ১০০ গরু বাণিজ্যিকভাবে বিক্রির লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে এখানকার সংশ্লিষ্ট কর্মীরা। এখানে দেশী জাতের সাথে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এবং শংকর জাতের গরু রয়েছে। বর্তমানে এখানে ৩ শতাধিক গরু আছে, আগামী ২ বছরের মধ্যে এই সংখ্যা ৫ শ’তে উন্নীত হবে বলে আশাবাদ উদ্যোক্তাদের। রাজধানী ঢাকা থেকে অদূরে, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ২০ একর জমির উপর গড়ে উঠেছে গ্লোব এগ্রিকালচারাল কর্পোরেশনের সুপরিসর কৃষি-খামার। এখানে রয়েছে প্রাকৃতিক পরিচর্চায় গড়ে ওঠা ফল, সবজির বাগান ও মাছ ও গরুর খামার।

গ্লোব এগ্রিকালচারাল কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহমেদ হোসেন গ্লোবালটিভিবিডি.কম’কে বলেন : শতভাগ অরগানিক বা্ প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে চাষ ও পরিচর্যার কারণে এখানকার উৎপাদিত শাক-সবজি, ফল, মাছ ও গরুর দুধ সন্দেহাতীতভাবে মানবদেহের জন্য সম্পূর্ণ নিরাপদ ও পুষ্টিসমৃদ্ধ। কেননা, এখনকার কোনো ফল-সবজি চাষে এবং মাছ, মুরগী বা গুরু প্রজনন ও পরিচর্যায় কোনোরকম কৃত্রিম বা রাসায়নিক উপাদান ব্যবহার করা হয় না।তাই আমাদের খামারের ফল, সবজি, মাছ ও গরু সম্পূর্ণ স্ট্রয়েড ও কেমিক্যালমুক্ত। যার ফলে আমাদের এগুলো খেলে হাঁপানি, চর্মরোগ ইত্যাদি শারীরিক সমস্যার আশঙ্কা নেই।

এখানকার গরুর খাদ্য এখানকারই নিজস্ব জমিতে প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে চাষ করা উন্নত ন্যাপিয়ার প্রজাতির ঘাষ এবং অন্যান্য খাদ্য ব্যবহার করা হয়। এমনকি, গরুর প্রজনন ও মোটাতাজাকরণেও সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়। যার ফলে এখানকার ফল, শাক-সবজি মাছ, গরু ও দুধে মানবদেহের জন্য কোনরকম ক্ষতিকর কোনো রাসায়নিক উপাদানের অস্তিত্ব নেই। খামার।গ্লোব এগ্রিকালচারাল কর্পোরেশনের খামার ব্যবস্থাপক মো. তৌহিদ মিজান ও খামার তত্ত্বাবধায়ক মো. আবু তাহের গ্লোবালটিভিবিডি.কম’কে বলেন : গত ৪ বছর আগে গ্লোবের এই নিজস্ব খামারের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এখানকার গরু খামার থেকেই কিনে থাকেন সচেতন ক্রেতারা। কেননা, বিভিন্ন পশুর হাটে নানা ধরনের ক্ষতিকর ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঘটে, যা মানুষ ও পশু-উভয়ের জহন্যই ক্ষতিকর।সেজন্য আমাদের খামারের গরু বিক্রির জন্য এইসব হাট-বাজারে নেয়া হয় না।আমাদের খামারের গরুকে আমাদের নিজস্ব খামারেই চাষ করা উন্নতমানের ঘাষ ও অন্যান্য প্রাকৃতিক খাদ্য খাওয়ানো হয়। বর্তশানে আমাদের ৩০০ গরুকে খাওয়ানোর পর উদ্বৃত্ত ঘাষ বিক্রিও করা হচ্ছে।আমাদের খামারের গরুর গোবর মাছ ও ঘাষ চাষে জৈবসার হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

এখানে বারোমাসি ফল এবং শাক-সবজিতেও কোররকম রাসায়নিক উপাদান ব্যবহার করা হয় না। গ্লোবালটিভিবিডি.কম’-এর পক্ষ থেকে রূপগঞ্জের গ্লোব এগ্রিকালচারাল কর্পোরেশনের সুপরিসর কৃষি-খামার সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে দেখা গেলো, সত্যিই, এক অপূর্ব, অতুলনীয় এক নান্দনিক কৃষি-খামার এটি। এখানে প্রতিদিন তিন শতাধিক কৃষি-শ্রমিক খামারের সার্বিক পরিচর্যায় কাজ করেন।তাদের খাওয়া-দাওয়া এই খামারের অভ্যন্তরেই সম্পন্ন হয়।প্রতিদিনই শাক-সবজি, ফলের বাগান ও মাছের পুকুর এবং সর্বোপরি এখানকার ডেইরি ও গরুর খামারের পরিচর্যা করেন তারা। তিন শতাধিক গরুকে প্রতিদিন নিয়মমাফিক গোসল করানো ও খাওয়ানোর কাজটি সুচারুভাবে করতে দেখা গেলো। বিভিন্ন প্রজাতি ও বিভিন্ন প্রকারের গরুকে আলাদা-আলাদাভাবে রাখা ও পরিচর্যা করা হয়। সবচেয়ে বড় কথা, গুরগুলোকে এই খামারেই সম্পূর্ন প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে উৎপাদিত উন্নত ন্যাপিয়ার জাতের ঘাষ ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর খাদ্য খাওয়ানো হয়। যা গরুর স্বাস্থ্যের জন্য যেমন নিরাপদ, তেমনি এই গরুর দুধ ও মাংস মানবদেহের জন্য খুবই পুষ্টিকর, উপাদেয় ও ঝুঁকিমুক্ত। খামারে নিযুক্ত কর্মীদেরকেও অত্যন্ত আন্তরিক ও যত্নশীল দেখা গেলো। সব মিলিয়ে, গ্লোব এগ্রিকালচারাল কর্পোরেশনের এমন যুগান্তকারী কর্মোদ্যোগ অন্য সবার জন্যও নিংসন্দেহে উৎসাহ-উদ্দীপনা ও প্রেরণার উৎস হিসেবে বিবেচিত হতে পারে বলে উদ্যোক্তারা  মনে করেন।

ছবি : ফয়সাল শাহজাহান

Share Button
Previous ইন্দোনেশিয়ার ভূমিকম্পে নিহত ৮২
Next এবার বাসের ধাক্কার শিকার স্বরাষ্টমন্ত্রীর গাড়ি

You might also like

০ Comments

No Comments Yet!

You can be first to comment this post!

Leave a Reply